মানবদেহ


১, মানব দেহের বৃহত্তম পেশি ?
উঃ গ্লুটিয়াস

২, মানব দেহের দীর্ঘতম পেশি?
উঃ সারটোরিয়াস

৩, মানব দেহের ক্ষুদ্রতম পেশি ?
উঃ সিলিয়ারি বা স্টেপিডিয়াস

৪, মানব দেহের দীর্ঘতম অস্থি ?
উঃ ফিমার

৫, মানবদেহের ক্ষুদ্রতম অস্থি ?
উঃ স্টেপিস

৬, মানব দেহের সর্বাপেক্ষা শক্তিশালী অস্থি ?
উঃফিমার এবং টেমপোরাল বোন

৭, মানব দেহের সর্বাপেক্ষা কঠিনতম অস্থি ?
উঃম্যান্ডিবল (নীচের চোয়ালে থাকে)

৮, মানবদেহের সর্বাপেক্ষা হালকা অস্থি ?
উঃ ন্যাসো-টার বিন্যালস

৯, মানব দেহের দীর্ঘতম শিরা ?
উঃ নিম্ন মহাশিরা

১০, মানবদেহের দীর্ঘতম ধমনী ?
উঃ অ্যাবডোমিনাল অ্যাওর্টা

১১, মানবদেহের দীর্ঘতম স্নায়ু ?
উঃ সায়াটিক স্নায়ু

১২, মানবদেহের বৃহত্তম অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি ?
উঃথাইরয়েড

১৩, মানবদেহের ক্ষুদ্রতম অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি?
উঃপিনিয়াল বডি

১৪, মানবদেহের বৃহত্তম পৌষ্টিক গ্রন্থি?
উঃ যকৃৎ

১৫, মানবদেহের বৃহত্তম লসিকা গ্রন্থি?
উঃ প্লিহা

১৬, মানবদেহের বৃহত্তম লালা গ্রন্থি ? উঃ প্যারোটিডগ্রন্থি

১৭, মানবদেহের সর্বাধিক পাতলা ত্বক?
উঃকনজাংটিভ

১৮, মানুষের দেহ তিন ধরনের কোষ নিয়ে গঠিত এগুলো হলো-
ক. Labile cell: এরা প্রতিনিয়ত জন্মাতে থাকে।
খ. Stable cell: এরা প্রতিনিয়ত জন্মায় না। তবে কোন স্টিমুলাসের কারনে জন্মাতে পারে।
গ. Permanent cell: এরা একেবারেই জন্মায় না। বরং বয়স বাড়ার সাথে সাথে কমতে থাকে।
চিকিৎসা বিজ্ঞান
১। জন্ডিসে কোন অঙ্গটি আক্রান্ত হয়?
উঃ যকৃত।
২। এন্টিবায়োটিকের কাজ কি?
উঃ জীবাণু ধ্বংস করা।
৩। রেডিও আইসোটোপ কোন রোগ নির্ণয়ে ব্যবহৃত হয়?
উঃ গলগন্ড রোগ।
৪। ভায়াগ্রা কি?
উঃ যৌনশক্তি বৃদ্ধিকারক ঔষধ।


৫। রক্তশুন্যতার অপর নাম কি?
উঃ অ্যানিমিয়া।
৬। নিউমোনিয়া রোগটি কোথায় হয়?
উঃ ফুসফুসে।
৭। আলট্রাভায়োলেট রশ্মি কোন রোগের সৃষ্টি করে?
উঃ চর্ম ক্যান্সার।
৮। কোনটি ম্যালেরিয়া জীবণু বহনকারী মশা?
উঃ এনোফিলিশ।
৯। ইন্টারনেটের মাধ্যমে চিকিৎসা দেওয়ার পদ্ধতিকে কি বলে?
উঃ টেলি মেডিসিন।
১০। বিষাক্ত নিকোটিন কিসে থাকে?
উঃ তামাকে।
১। সুষম খাদ্যের উপাদান কয়টি?
উঃ ৬ টি।
২। হাড় ও দাঁতকে মজবুদ করে কোনটি?
উঃ ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস।
৩। চা পাতায় কোন ভিটামিন থাকে?
উঃ ভিটামিন বি কমপ্লেক্স।
৪। ম্যালিক এসিড থাকে কিসে?
উঃ টমেটোতে।
৫। কোন ভিটামিন ক্ষতস্থানের রক্ত পড়া বন্ধ করে?
উঃ ভিটামিন কে।
৬। প্রোটিনের মূল উপাদান কি?
উঃ নাইট্রোজেন।
৭। দুধের রং সাদা হয় কেন?
উঃ প্রোটিনের জন্য।
৮। ভিটামিন ‘সি’ এর রাসায়নিক নাম কি?
উঃ অ্যাসকরবিক এসিড।
৯। কোন খাদ্যে পচন ধরে না?
উঃ মধু।
১০। কচুশাকে কোনটি বেশি থাকে?
উঃ লৌহ।


স্বাস্থ্য বিষয়
১. প্রশ্নঃ একজন স্বাভাবিক স্বাস্থ্যবান মানুষ ২৪ ঘণ্টায় কত বার শ্বাস প্রশ্বাস নেয়?
উত্তরঃ ২৩,০৪০ বার।
২. প্রশ্নঃ একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের হৃৎপিণ্ড দিনে কত লিটার রক্ত পাম্প করে?
উত্তরঃ ৬,০০০-৭,৫০০ লিটার।
৩. প্রশ্নঃ মানুষ প্রতিরাতে গড়ে কত মিনিট স্বপ্ন দেখে?
উত্তরঃ ১ – ১.৫ মিনিট।
৪. প্রশ্নঃ একজন সুস্থ স্বাভাবিক মানুষের হৃৎপিণ্ড দিনে কত বার স্পন্দিত হয়?
উত্তরঃ ১,৩০,৬৮০ বার।
৫. প্রশ্নঃ মানুষের মাথার মগজের কি পরিমাণ কোষ কোনো না কোনো কাজ করে?
উত্তরঃ ৭০ লক্ষ।
৬. প্রশ্নঃ মাথার চুল দিনে গড়ে কতটুকু বাড়ে?
উত্তরঃ ০.০১৭১৪ ইঞ্চি।


৭. প্রশ্নঃ সকালের তুলনায় সন্ধ্যায় উচ্চতা কতটুকু হ্রাস পায়?
উত্তরঃ ১ সেন্টিমিটার।
৮. প্রশ্নঃ মানব শরীরে কতটুকু পানি ও কার্বন রয়েছে?
উত্তরঃ ৭০% পানি ও ১৮% কার্বন।
৯. প্রশ্নঃ একজন মানুষের চামড়ার ওপর কি পরিমাণ লোমকূপ রয়েছে?
উত্তরঃ ১ কোটি।
১০. প্রশ্নঃ মানুষের মস্তিষ্ক কি পরিমাণ গন্ধ বুঝতে পারে?
উত্তরঃ প্রায় ১০,০০০।
১১. প্রশ্নঃ একজন মানুষের রক্তের পরিমাণ শরীরের ওজনের কত ভাগ?
উত্তরঃ ১৩ ভাগের এক ভাগ।
১২. প্রশ্নঃ দেহের সব শিরাকে পাশাপাশি সাজালে কতটুকু জমির প্রয়োজন?
উত্তরঃ দেড় একর জমি।
১৩. প্রশ্নঃ মানুষ চোখ খুলে কী করতে পারে না?
উত্তরঃ হাঁচি দিতে পারে না।
১৪. প্রশ্নঃ মানুষের দেহের সবচেয়ে শক্তিশালী পেশী কোনটি?
উত্তরঃ জিহ্বা।
১৫. প্রশ্নঃ মানবদেহের সবচেয় বড় হাড় কোনটি?
উত্তরঃ পাঁজর।
১৬. প্রশ্নঃ মানবদেহের সবচেয় ক্ষুদ্রতম হাড় কোনটি?
উত্তরঃ কানের হাড়।
১৭. প্রশ্নঃ আমরা কয়টি হাড় নিয়ে জন্মগ্রহণ করি?
উত্তরঃ ৩০০ হাড়।
১৮. প্রশ্নঃ প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার পর আমাদের দেহে কয়টি হাড় থাকে?
উত্তরঃ ২০৬টি।


১৯. প্রশ্নঃ আমাদের চোখের একটি পাপড়ি কত দিন বেঁচে থাকে?
উত্তরঃ ১৫০ দিন। এরপর নিজে থেকেই ঝরে যায়।
২০. প্রশ্নঃ আমাদের মাথার খুলি কত ধরনের ভিন্ন ভিন্ন হাড় দিয়ে তৈরি?
উত্তরঃ ২৬ ধরনের।
২১. প্রশ্নঃ সেলসিয়াস স্কেলে মানবদেহের স্বাভাবিক উষ্ণতা কত?
উত্তরঃ ৩৬.৯ ডিগ্রি।
২২. প্রশ্নঃ স্বাভাবিক অবস্থায় একজন মানুষের উপর প্রতি বর্গ ইঞ্চিতে বায়ুর চাপ কত?
উত্তরঃ ১৫ পাউন্ড।
২৩. প্রশ্নঃ সিস্টোলিক চাপ বলতে কী বোঝায়?
উত্তরঃ হৃৎপিণ্ডের সংকোচন চাপ।
২৪. প্রশ্নঃ ডায়োস্টোল চাপ বলতে কী বোঝায়?
উত্তরঃ হৃৎপিণ্ডের প্রসারণ।
২৫. প্রশ্নঃ রক্তে হিমোগ্লোবিন থাকে কোথায়?
উত্তরঃ লোহিত কণিকায়।
২৬. প্রশ্নঃ রক্তের লোহিত কণিকা তৈরি হয় কোথায়?
উত্তরঃ অস্থিমজ্জায়।
২৭. প্রশ্নঃ মানবদেহে মোট কশেরুকার সংখ্যা কত?
উত্তরঃ ৩৩টি।
২৮. প্রশ্নঃ মানুষের মুখে কর্তণ দাতের সংখ্যা কত?
উত্তরঃ ২০টি।
২৯. প্রশ্নঃ রক্ত কত প্রকার?
উত্তরঃ ৩ প্রকার।


৩০. প্রশ্নঃ হিমোগ্লোবিনের কাজ কী?
উত্তরঃ অক্সিজেন ও কার্বন-ডাই-অক্সাইড বহন করা।
৩১. প্রশ্নঃ পালমোনারি (ফুসফুসীয়) শিরা কী বহন করে?
উত্তরঃ অক্সিজেনবাহী রক্ত।
৩২. প্রশ্নঃ মানবদেহের হৃৎপিণ্ড কত প্রকোষ্ঠ বিশিষ্ট?
উত্তরঃ চার প্রকোষ্ঠ বিশিষ্ট।
৩৩. প্রশ্নঃ লোহিত কণিকার আয়ুষ্কাল কত দিন?
উত্তরঃ ৫-৬ দিন।
৩৪. প্রশ্নঃ অণুচক্রিকার গড় আয়ু কত দিন?
উত্তরঃ ১০ দিন।
৩৫. প্রশ্নঃ রক্তশূন্যতা বলতে কী বোঝায়?
উত্তরঃ রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ কমে যাওয়া।
৩৬. প্রশ্নঃ রক্তের গ্রুপ আবিষ্কার করেন কে?
উত্তরঃ ল্যান্ড স্টিনার।
৩৭. প্রশ্নঃ বিলিরুবিন কোথায় তৈরি হয়?
উত্তরঃ যকৃতে।
৩৮. প্রশ্নঃ বক্ষ গহ্বর ও উদর পৃথক রাখে কে?
উত্তরঃ ডায়াফ্রাম।
৩৯. প্রশ্নঃ কিডনির কার্যকরী একক কী?
উত্তরঃ নেফরন।
৪০. প্রশ্নঃ প্রস্রাবের ঝাঁঝালো গন্ধের জন্য দায়ি পদার্থের নাম কী?
উত্তরঃ এমোনিয়া।
৪১. প্রশ্নঃ প্রস্রাব হলুদ দেখায় কেন?
উত্তরঃ বিলিরুবিনের জন্য।
৪২. প্রশ্নঃ অ্যামাইনো অ্যাসিড ইউরিয়ায় পরিণত হয় কোথায়?
উত্তরঃ যকৃতে।


৪৩. প্রশ্নঃ মানবদেহে রাসায়নিক দূত হিসাবে কাজ করে কী?
উত্তরঃ হরমোন।
৪৪. প্রশ্নঃ ডায়াবেটিস রোগ হয় কোন প্রাণরসের অভাবে?
উত্তরঃ ইনসুলিন।
৪৫. প্রশ্নঃ পিত্ত রস অগ্নাশয় রসের সাথে মিলিত হয় কোথায়?
উত্তরঃ ডিওডেনাম।
৪৬. প্রশ্নঃ মানবদেহে বৃহত্তম গ্রন্থি কোনটি?
উত্তরঃ যকৃত।
৪৭. প্রশ্নঃ চোখের জল নিঃসৃত হয় কোথা থেকে?
উত্তরঃ লেকরিমাল গ্রন্থি থেকে।
৪৮. প্রশ্নঃ নার্ভের মাধ্যমে প্রবাহিত আবেগের গতি প্রতি সেকেন্ডে কত মিটার?
উত্তরঃ ১২৫ মিটার।
৪৯. প্রশ্নঃ একজন সুস্থ মানুষের একটি হৃৎকম্পন সম্পূর্ণ হতে কত সময় লাগে?
উত্তরঃ ০.৪ সেকেন্ড।
৫০. প্রশ্নঃ ১০. প্রশ্ন : শরীর থেকে বর্জ্য পদার্থ ইউরিয়া বের করে দেয় কোন অঙ্গ?
উত্তরঃ কিডনি।
৫১. প্রশ্নঃ একজন স্ত্রী লোক জননকালে প্রতি মাসে কয়টি ডিম্ব উৎপাদন করে?
উত্তরঃ ১টি।
৫২. প্রশ্নঃ প্রস্রাব প্রস্তুত হয় কোথায়?
উত্তরঃ কিডনীতে।
৫৩. প্রশ্নঃ থাইরয়েড গ্রন্থি থেকে নিঃসৃত প্রাণরসের নাম কী?
উত্তরঃ থাইরক্সিন।


৫৪. প্রশ্নঃ চোখের মধ্যে সবচেয়ে সংবেদনশীল অংশের নাম কী?
উত্তরঃ রেটিনা।
৫৫. প্রশ্নঃ আমিষ জাতীয় খাদ্য পরিপাক করে কোন জারক রস?
উত্তরঃ পেপসিন।
৫৬. প্রশ্নঃ বহিঃকর্ণ ও মধ্যকর্ণের সংযোগস্থলের পর্দাটির নাম কী?
উত্তরঃ টিস্প্যানিক পর্দা।
৫৭. প্রশ্নঃ জীব দেহের ওজনের প্রায় ২৪ ভাগ কোন পদার্থ?
উত্তরঃ কার্বন।
৫৮. প্রশ্নঃ যকৃত বা পেশী কোষে অতিরিক্ত গ্লুকোজ জমা থাকে কী রূপে?
উত্তরঃ গ্লাইকোজেন রূপে।
৫৯. প্রশ্নঃ প্রোটিন জাতীয় খাদ্যের প্রধান কাজ কী?
উত্তরঃ দেহের ক্ষয় পূরণ ও বৃদ্ধি জাতীয় কাজ করা।
৬০. প্রশ্নঃ কোন হরমোনের অভাবে স্নায়ু ও পেশীর অস্থিরতা বেড়ে যায় ও পেশীর খিচুনী শুরু হয়?
উত্তরঃ প্যারা থরমোন।


৬১. প্রশ্নঃ ভয় পেলে গায়ের লোম খাড়া হয় কোন হরমোনের অভাবে?
উত্তরঃ অ্যাড্রনালিন।
৬২. প্রশ্নঃ দাড়ি গোঁফ গজায় কোন হরমোনের জন্য?
উত্তরঃ উত্তর : টেস্টোস্টেরন।
৬৩. প্রশ্নঃ জীবন রক্ষাকারী হরমোন কোনটি?
উত্তরঃ অ্যালডোস্টেরন।
৬৪. প্রশ্নঃ ফসফরাস বেশি থাকে কোন অঙ্গে?
উত্তরঃ অস্থিতে।
৬৫. প্রশ্নঃ খাদ্যদ্রব্য সবচেয়ে বেশি শোষিত হয় পোস্টিক নালীর কোন অংশে?
উত্তরঃ ক্ষুদ্রান্তে।


৬৬. প্রশ্নঃ মহিলাদের পরিণত জনন কোষকে কি বলে?
উত্তরঃ ডিম্বাণু।
৬৭. প্রশ্নঃ মানুষের করোটিতে কতটি অস্থি থাকে?
উত্তরঃ ২৪টি।
৬৮. প্রশ্নঃ প্রতি মিনিটে হৃৎপিণ্ডের স্বাভাবিক গড় স্পন্দন কত?
উত্তরঃ ৭২।
৬৯. প্রশ্নঃ ধমনী শেষ হয় কোথায়?
উত্তরঃ লসিকায়।
৭০. প্রশ্নঃ মানুষ সাদা ও কালো হয় কোন হরমোনের কারণে?
উত্তরঃ মেলানিন।
৭১. প্রশ্নঃ মস্তিস্কে প্রতি মিনিটে কি পরিমাণ রক্ত সরবরাহ হয়?
উত্তরঃ ৩৫০ মিলিলিটার।
৭২. প্রশ্নঃ পরিপাকতন্ত্রের সবচেয়ে শক্তিশালী স্ফিত অংশের নাম কী?
উত্তরঃ পাকস্থলী।
৭৩. প্রশ্নঃ কোন জিনিস পিত্তের বর্ণের জন্য দায়ী?
উত্তরঃ বিলিরুবিন।
৭৪. প্রশ্নঃ নিউরন কী?
উত্তরঃ স্নায়ু কলার প্রতিটি কোষকে নিউরন বলে।
৭৫. প্রশ্নঃ কোন সন্ধিতে সবচেয়ে বেশি মুভমেন্ট হয়?
উত্তরঃ সাইনভিয়াল সন্ধি।
৭৬. প্রশ্নঃ মানবদেহের ক্ষুদ্রতম অস্থির নাম কী?
উত্তরঃ স্টেপিস।
৭৭. প্রশ্নঃ রোগ-জীবাণু ধ্বংস করতে সাহায্য করে কোন রস?
উত্তরঃ পিত্তরস।
৭৮. প্রশ্নঃ কোন হরমোন রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বাড়ায়?
উত্তরঃ গ্লোকাগন।
৭৯. প্রশ্নঃ একজন বয়স্ক লোক প্রতিমিনিটে কতবার শ্বাস নেয়?
উত্তরঃ ১২-১৮ বার।


৮০. প্রশ্নঃ মানবদেহের রক্ত সঞ্চালন চক্র আবিষ্কার করেন কে?
উত্তরঃ উইলিয়াম হার্ভে।
৮১. প্রশ্নঃ কোন অ্যাসিড মানবদেহে অপেক্ষাকৃত বেশি পরিমাণে আছে?
উত্তরঃ এইচসিএল।
৮২. প্রশ্নঃ লম্বা হওয়ার জন্য কোন হরমোন দায়ী?
উত্তরঃ গ্রোথ হরমোন।
৮৩. প্রশ্নঃ জরায়ু সংকোচনে সহায়তা করে কোন হরমোন?
উত্তরঃ অক্সিটোসিন।
৮৪. প্রশ্নঃ রক্ত কি ধরনের কলা?
উত্তরঃ যোজক কলা।
৮৫. প্রশ্নঃ স্নায়ু কোষের বর্ধিত অংশকে কী বলে?
উত্তরঃ উত্তর : এক্সেন।
৮৬. প্রশ্নঃ প্রশ্বাসে কি ধরনের বায়ু ফুসফুসে প্রবেশ করে?
উত্তরঃ অক্সিজেন মিশ্রিত।


৮৭. প্রশ্নঃ রক্তের চাপ কোথায় সবচেয়ে কম?
উত্তরঃ শিরায়।
৮৮. প্রশ্নঃ মানবদেহের সবচেয়ে বড় গ্রন্থির নাম কি?
উত্তরঃ যকৃত।
৮৯. প্রশ্নঃ মানবদেহের সবচেয়ে বড় অস্থির নাম কি?
উত্তরঃ ফিমার।
৯০. প্রশ্নঃ কোনটি শিশুকালে অপসারণ করলে বামনত্ব হয়?
উত্তরঃ পিটুইটারি।
৯১. প্রশ্নঃ শোসনের সময় দেহ থেকে কি নির্গত হয়?
উত্তরঃ কার্বন-ডাই-অক্সাইড।
৯২. প্রশ্নঃ শুক্রাশয় থেকে নিসৃত হরমোনের নাম কি?
উত্তরঃ টেস্টোস্টেরন।
৯৩. প্রশ্নঃ মাইটোসিস কোথায় সংগঠিত হয়?
উত্তরঃ দেহ কোষে।


৯৪. প্রশ্নঃ রক্তে লোহিত ও শ্বেত কণিকার অনুপাত কত?
উত্তরঃ ৫০০ : ১।
৯৫. প্রশ্নঃ রক্ত জমাট বাঁধার পার রক্তের হালকা অবশিষ্ট তরল অংশকে কি বলে?
উত্তরঃ সিরাম।
৯৬. প্রশ্নঃ মানবদেহের সর্বাপেক্ষা দৃঢ় ও দীর্ঘ অস্থি কোনটি?
উত্তরঃ উরুর অস্থি।
৯৭. প্রশ্নঃ অণুচক্রিকার কাজ কি?
উত্তরঃ রক্ত জমাট বাঁধা।
৯৮. প্রশ্নঃ লিউকোমিয়া রোগের কারণ কি?
উত্তরঃ রক্তে শ্বেত কণিকার মাত্রা বেড়ে যাওয়া।
৯৯. প্রশ্নঃ দেহের শক্তির প্রধান মাধ্যম কি?
উত্তরঃ শ্বসন।
১০০. প্রশ্নঃ দেহে মেলানিনের প্রধান কাজ কি?
উত্তরঃ উত্তর : সূর্যরশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে দেহকে রক্ষা করা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply